পোকা মাকড় কিন্তু সহজে কোনো মানুষকে কামড়ায় না, তবে তাদের বন্যজীবন যদি কখনো মানুষের দ্বারা ব্যহত হয়, তখন তারা নিজেদের রক্ষা করার জন্য আক্রমণাত্মক হয়ে উঠে। আপনি পাহাড়ে, পানিতে, ভ্রমণে, বাড়ির উঠানে বা বিছানায় যেখানেই থাকুন না কেন, যে কোনো সময় পোকামাকড়ের কামড়ে আক্রান্ত হতে পারেন।

আর তাই জেনে রাখা ভালো যে কোন পোকার কামড়ে যন্ত্রণা কমানোর জন্য কি ব্যবস্থা নিতে হবে এবং কি কি লক্ষণ দেখা দিলে দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত। মশা, মাছি, পিঁপড়া, ছারপোকা, তেলাপোকা, মাকড়সা, এঁটেল পোকা (Ticks), মৌমাছি, জোঁক (Leech) ইত্যাদি কামড়ানোর লক্ষণ এবং ঘরোয়া প্রতিকার সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জানতে অনুচ্ছেদটি শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন।

পোকামাকড় / মশার কামড় ও ঘরোয়া প্রতিকার

পোকামাকড় / মশার কামড়তো মোটামুটি সবারই পরিচিত, তাইনা? সাধারণত মশার কামড়ে আশেপাশের জায়গাটি লাল হয়ে যায় এবং চুলকায়। সেই সাথে জায়গাটিতে সামান্য জ্বালাপোড়া হতে পারে এবং ফুলে যেতে দেখা যায়। চুলকানি কমাতে কামড়ের জায়গায় কিছুটা লোশন বা অ্যালকোহল দিয়ে কিছুক্ষণ ম্যাসাজ করুন।

মশার কামড়কে কিন্তু সবসময় অবহেলা করা যাবেনা। কারণ অনেক সময় মশা বিভিন্ন গুরুতর রোগের জীবাণু বহন করে থাকে। যেমনঃ ডেঙ্গু জ্বর (Dengue), ম্যালেরিয়া, চিকুনগুনিয়া, গোদ রোগ (Filariasis) ইত্যাদি। যদি বুঝতে পারেন যে, সারা শরীর বা জয়েন্টে ব্যথা হচ্ছে এবং সেই সাথে জ্বর, লিম্ফনোড ফুলে গেছে কিংবা অন্যান্য আরো কিছু অস্বাভাবিক লক্ষণ দেখা দিচ্ছে তাহলে দেরি না করে অবশ্যই একজন ডাক্তারের শরণাপন্ন হবেন।

মশার কামড় ও মশাবাহিত রোগ প্রতিরোধের জন্য মশারি টাঙিয়ে ঘুমানোর অভ্যাস করুন। সেই সাথে মশার বংশবিস্তার রোধ করতে বাড়ির আঙিনা যতটা সম্ভব পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন।

Fleas বা একধরনের মাছির কামড় ও ঘরোয়া প্রতিকার

এই মাছি কামড় দিলে আপনার ত্বকে তিন-চারটি লাল বিন্দুর মত হয়ে যাবে যা দেখতে অনেকটা র‍্যাশের (rash) মত লাগবে। এই কামড়ে হওয়া ছোট ছোট ফুসকুড়ি গুলোতে অনেক বেশি চুলকানি হয় যা খুবই যন্ত্রণাদায়ক। এক্ষেত্রে আপনি প্রথমেই কিছু নারকেল তেল, ক্যালামিন লোশন, এলোভেরা জেল অথবা ভিনেগার আক্রান্ত স্থানে প্রয়োগ করুন। এতে করে যন্ত্রণা কিছুটা কমে আরাম বোধ হবে।

অতিরিক্ত চুলকানি হলেও খুব বেশি স্ক্র্যাচ (scratching) করবেন না। কারণ এতে করে ইনফেকশন বা আপনার ত্বকের ক্ষতি হতে পারে। তবে চুলকানি কমানোর জন্য এন্টিহিস্টামিন (Antihistamine) গ্রুপের ওষুধ খেতে পারেন। যেমনঃ (Cunha, 2022)

  • Cetirizine (Zyrtec)
  • Chlorpheniramine
  • Fexofenadine
  • Loratadine ইত্যাদি

উল্লেখ্য এন্টিহিস্টামিন গ্রুপের ওষুধগুলো ওটিসি (OTC- over the counter) মেডিসিন যা চিকিৎসকের নির্দেশনা ছাড়াই সেবন করা যায়। চুলকানি কমাতে যে কোন একটি ওষুধ দিনে ২ বার খেলেই যথেষ্ট এবং চুলকানি ঠিক হয়ে গেলে সেক্ষেত্রে আর ওষুধ খাওয়ার প্রয়োজন নেই।

বেলেমাছির কামড় ও প্রতিকার

বেলেমাছি (sand fly) কামড়ালে ত্বকের উপরিভাগে ফোস্কার মতো দেখা যায় এবং প্রচন্ড ব্যথা হয়। এক্ষেত্রে ব্যথা ও যন্ত্রণা কমাতে আক্রান্ত স্থানে ক্যালামিন লোশন অথবা এলোভেরা জেল লাগিয়ে রাখুন। ফোস্কা গলে ক্ষতের (sores) সৃষ্টি হয় তবে এতে ভয়ের কিছু নেই যদি তা কয়েকদিনের মধ্যে আপনাআপনি ঠিক হয়ে যায়। তবে এক সপ্তাহ বা তার বেশি সময় ধরে ক্ষত থাকলে সেক্ষেত্রে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত। কারণ অনেক সময় এতে করে ত্বকে ইনফেকশনের সৃষ্টি হয়।

বেলেমাছি কালাজ্বর (leishmaniasis) এর জীবাণু বহন করে থাকে। আর তাই বেলেমাছির কামড় থেকে কালাজ্বর হতে পারে যার লক্ষণ হিসেবে দেখা যায় শারীরিক দুর্বলতা, ক্ষুধা মন্দা ভাব, বার বার জ্বর আসা, লসিকা গ্রন্থি ফুলে যাওয়া ইত্যাদি।‌ এমতাবস্থায় দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। উল্লেখ্য কালাজ্বর প্রতিরোধের জন্য কোনো ভ্যাকসিন নেই আর তাই বেলেমাছির কামড় থেকে বাঁচতে মাটির মেঝে ও দেয়াল ফাটল বিহীন এবং পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন যাতে বেলেমাছি বংশ বিস্তার করতে না পারে। সেই সাথে গোয়াল ঘর (গবাদিপশুর ঘর) থেকে দূরে মানুষের থাকার ঘর স্থাপন করতে হবে।

ছারপোকার কামড় ও প্রতিকার

ছাড়পোকাকে কিন্তু অবহেলা করলে চলবে না, কারণ বিছানায় এমন কয়েকটি পোকাই যথেষ্ট আপনার ঘুমের বারোটা বাজাতে! ছাড়পোকার কামড়ে একেক জনের একের রকম reaction হয়। যেমনঃ কিছু লোক বিছানাভর্তি ছারপোকা নিয়েও দিব্যি ঘুমিয়ে থাকতে পারে এবং কামড়ালে কিছুই টের পায়না! আবার কারো কারো ক্ষেত্রে প্রচন্ড অ্যালার্জিক reaction দেখা যায়। যেমনঃ

  • চুলকানি হয়
  • ফুলে যায় (Swelling)
  • জ্বালাপোড়া হতে পারে ইত্যাদি

এক্ষেত্রে আপনি কামড় অনুভব করা মাত্রই সাবান দিয়ে ভালো করে জায়গাটি কয়েকবার ধুয়ে ফেলবেন। সাধারণত ছাড়পোকা কামড়ানোর সর্বোচ্চ ১ থেকে ২ সপ্তাহের মধ্যে সমস্ত লক্ষণ ঠিক হয়ে যায় এবং পরবর্তীতে তেমন কোনো জটিল সমস্যার সৃষ্টি হয় না। তবে কারো ক্ষেত্রে খুব বেশি এলার্জিক reaction দেখা দিলে এন্টিহিস্টামিন ওষুধ সেবন করুন অথবা একজন ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে পারেন।

মাকড়সার কামড় ও প্রতিকার

বেশিরভাগ মাকড়সার কামড়েই তেমন কোন প্রতিক্রিয়া থাকে না তবে ব্যতিক্রমও রয়েছে যেমন কালো এবং বাদামী রঙের মাকড়সা, যার কামড়ে মারাত্মক পরিণতি ঘটতে পারে। যদি কোনো মাকড়সা আপনাকে কামড়ায়, তবে সাবান দিয়ে জায়গাটি কয়েকবার ভাল করে ধুয়ে ফেলুন। এর পরে কিছুক্ষণ বরফ লাগিয়ে রাখুন। তবে যদি জায়গাটি আস্তে আস্তে আরো বেশি ফুলতে থাকে তাহলে অবিলম্বে একজন ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হবে।

 

এঁটেল পোকার (ticks) কামড় ও প্রতিকার

নামটি অপরিচিত মনে হলেও, পোকাটি কিন্তু সবাই চেনেন। ছোট্ট এই পোকাটি সাধারণত পশম ওয়ালা প্রানীর গায়ে পাওয়া যায়। যেমনঃ কুকুর, বিড়াল, গরু, ঘোড়া ইত্যাদি। অনেক সময় এই পোকা কামড় দিয়ে চামড়ায় ধরে থাকে, এমন হলে আগে পোকাটি ছাড়িয়ে নিন। এঁটেল পোকার কামড়ে সাধারণত কোনো লক্ষণ দেখা যায় না এবং জটিলতার সৃষ্টি হয় না। তবে ক্ষেত্র বিশেষে নিম্নলিখিত লক্ষণ গুলো দেখা যেতে পারে। যেমনঃ

  • আক্রান্ত স্থান ফুলে যায় এবং ব্যথা হয়
  • র‍্যাশ (Rash) ও জ্বালাপোড়া
  • এলার্জি ও শ্বাসকষ্ট ইত্যাদি

এক্ষেত্রে আক্রান্ত স্থানে কোনো তেল ব্যবহার করবেন না এবং তাপ লাগাবেন না। খুব ভাল করে কয়েকবার সাবান দিয়ে জায়গাটি ধুয়ে নিবেন। সাধারণত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়ার প্রয়োজন পড়ে না। তবে সারা শরীরে র‍্যাশ (Rash) অথবা কামড়ানোর ৬ সপ্তাহের মধ্যে জ্বর, মাথাব্যথা, মাংসপেশীতে ব্যথা, ঝিমুনি ভাব ইত্যাদি দেখা দিলে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। (Holland, 2021)

মৌমাছির বা ভিমরুলের কামড় ও ঘরোয়া প্রতিকার

মৌমাছি ও ভিমরুল কামড়ানোর সময় আপনার ত্বকের ভেতরে হুল (Sting) বসিয়ে এক ধরনের বিষ ঢুকিয়ে দেয়। এক্ষেত্রে সর্বপ্রথম হুল বের করে ফেলার চেষ্টা করতে হবে। অতঃপর আক্রান্ত স্থানটি সাবান দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন এবং মধু, টুথপেস্ট অথবা চুন লাগিয়ে রাখতে পারেন। এতে করে যন্ত্রণা অনেকটাই কমে যাবে। তবে কামড় খাওয়ার পর যদি শরীরে জ্বর ও ব্যথা হয় সেক্ষেত্রে প্যারাসিটামল খাওয়া যেতে পারে।

লাল পিঁপড়ার কামড় ও প্রতিকার

লাল পিঁপড়ার কামড়ালে ত্বকের উপরিভাগে লাল হয়ে যায় এবং চুলকাতে শুরু করে। চুলকানি কমাতে লেবুর রস, ভিনেগার অথবা অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। সাধারণত কয়েক মিনিট থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ কয়েক ঘন্টার মধ্যেই এই সমস্যা ঠিক হয়ে যায়। তবে যাদের শরীরে অতিরিক্ত এলার্জি রয়েছে তাদের ক্ষেত্রে চুলকানি নিয়ন্ত্রণে এন্টিহিস্টামিন খাওয়া যেতে পারে।

জোঁকের কামড় ও ঘরোয়া প্রতিকার

নদীতে মাছ ধরতে অথবা পুকুরে গোসলের সময়, অথবা শুকনো জায়গা থেকেও অনেকেই জোঁকের (Leech) আক্রমণের শিকার হয়ে থাকেন। জোঁক সাধারণত কামড় দিয়ে ত্বকের উপরে শক্ত ভাবে লেগে থাকে এবং রক্ত শোষণ করে। এক্ষেত্রে ভয় না পেয়ে বরং জোঁক ছাড়ানোর চেষ্টা করতে হবে। ত্বকের সাথে লেগে থাকা অংশে দুই আঙ্গুল অথবা শক্ত কোনো কাঠি দিয়ে জোঁক ছাড়াতে হবে। মনে রাখবেন প্রচলিত পদ্ধতি হিসেবে জোঁকের গায়ে লবণ, শ্যাম্পু অথবা আগুনের তাপ দেওয়া যাবে না। কারণ এতে করে জোঁক যেটুকু রক্ত খেয়েছে তা বমি করে বের করে দেয়। আর এগুলো ত্বকের উপরিভাগে জোঁক যেখানে ক্ষত সৃষ্টি করে রক্ত খেয়েছে সেখানে লেগে যায় যা থেকে ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। (Behring, 2022)

জোঁক ছাড়ানোর পরেও রক্তক্ষরণ হতে পারে কারণ জোঁকের মুখে একধরনের উপাদান (anticoagulant) থাকে যা রক্ত জমাট বাঁধতে বিঘ্ন ঘটায়। এক্ষেত্রে রক্ত বন্ধ করতে স্যাভলন অথবা ডেটোল ও তুলা বা ব্যাণ্ডেজ (Bandage) দিয়ে ক্ষতস্থান চেপে ধরে রাখতে হবে। রক্তক্ষরণ বন্ধ হয়ে গেলে পরবর্তীতে জোঁকের কামড় থেকে তেমন কোনো জটিলতার সৃষ্টি হয় না এবং চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়ার প্রয়োজন নেই।

পোকামাকড় কামড়ালে তাৎক্ষণিক পর্যায়ে একটু বেশি যন্ত্রণা হয় তবে আতংকিত হওয়ার কিছুই নেই। কারণ অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তা ঘরোয়া পদ্ধতিতে প্রতিকার করা সম্ভব হয় এবং এর ফলে পরবর্তীতে তেমন কোনো জটিলতার সৃষ্টি হতে দেখা যায় না। পোকার কামড়ের প্রাথমিক ব্যবস্থার জন্য বাড়িতে এবং ভ্রমণের সময় কমন কিছু জিনিস সংগ্রহে রাখা ভালো। যেমনঃ স্যাভলন, তুলা বা ব্যাণ্ডেজ, এন্টিহিস্টামিন ওষুধ, প্যারাসিটামল ইত্যাদি।

 

References

Behring, S. (2022, February 09). Leech bites: What to Know and How to Remove. From Healthline: https://www.healthline.com/health/how-to-remove-a-leech

Cunha, J. P. (2022, 03 10). Flea Bites In Humans Treatment and Symptoms. From medicinenet: https://www.medicinenet.com/flea_bites_in_humans/article.htm

Holland, K. (2021, december 23). Tick Bites: Symptoms and Treatments. From Healthline: https://www.healthline.com/health/tick-bites#locations-of-tick-bites

 

 

Last Updated on April 9, 2022

Was this article helpful?
YesNo